নখের সৌন্দর্য রক্ষায় যে অভ্যাসগুলো মেনে চলা জরুরি

মানুষের দেহের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ হলো হাত। আর হাতের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে নখ। নখ সুন্দর হলে পুরো হাতটাই যেন আকর্ষণীয় হয়ে যায়। আর তাই নখের সুস্থতার জন্য প্রয়োজন কিছু অভ্যাস ও নিয়ম পালন করা। নয়তো নখ ভেঙ্গে যায়, অপরিষ্কার থাকে। নখের সৌন্দর্য রক্ষার সাথে নিজের ব্যক্তিত্ত্ব অনেকাংশে জড়িত। নখ সুন্দর ও আকর্ষণীয় হলে আপনি সকলের কাছে আকর্ষণীয় হয়ে উঠবেন। তাই নখ সুস্থ রাখার জন্য কিছু অভ্যাস মেনে চলা প্রয়োজন। তাই জেনে নিন, নখের সৌন্দর্য রক্ষায় যে অভ্যাসগুলো মেনে চলা জরুরী তা সম্পর্কে।

হাত পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা

নখ সুস্থ রাখার জন্য প্রথমত হাত পরিষ্কার রাখতে হবে। যেকোনো কাজ করার আগে ও পরে ভালো করে হাত ধুতে হবে। নখকে বিভিন্ন শেপে কেটে রাখলে হাত সুন্দর দেখায়। তবে রাউন্ড শেপে কাটলে অধিক সুবিধা পাওয়া যায়। যেকোনো কাজ করতে গেলে নখ ভেঙে যাওয়ার ভয় কম থাকে রাউন্ড শেপে নখ কাটলে। তাছাড়া প্রতিদিন নখের যত্ন নেয়া প্রয়োজন।

 

Photo: Benefits Bridge – United Concordia  

ত্বক বিশেষজ্ঞ ডক্টর আভা রহমান মনে করেন, প্রতিদিন টুথব্রাশে সাবান লাগিয়ে নখ পরিষ্কার করলে নখের ভেতরের সব ময়লা দূর হয় এবং নখ সুন্দর থাকে। তাছাড়া সপ্তাহে দুই থেকে তিন বার নখে লেবু ঘষলেও নখ সুন্দর থাকে। সেই সাথে হাতও থাকে মসৃণ ও দীপ্তিময়।   

নিয়মিত নখ কাটা

সুস্থ থাকার জন্য নিয়মিত নখ কাটা প্রয়োজন। নয়তো নখের ভেতরে অনেক ময়লা জমে যায়। তাছাড়া আপনি যদি নখ বড় রাখতে চান, তাহলে প্রতি এক দুই সপ্তাহ পর পর নখ কাটুন, নখের শেপ ঠিক করুন। কারণ নখ দ্রুত বড় হয়ে যায়। শেপ ঠিক না করলে যেকোনো কাজ করার সময় কিছু একটাতে লেগে নখ ভেঙে যেতে পারে।

Photo: thebreastcaresite.com

আপনি যদি হাতের নখ একেবারে ছোট রাখতে চান, তাহলে সপ্তাহে এক বা দুইবার নখ কাটুন। আর খেয়াল রাখুন, নখের ভেতরে যেন ময়লা না জমে।

সুবিধা অনুযায়ী নখ বড় রাখা

বড় নখ দেখতে সুন্দর লাগে। তবে বড় নখ খুব ভঙ্গুর হয়। আপনি যদি বড় নখ সঠিকভাবে পরিচর্যা ও রক্ষণাবেক্ষণ করতে পারেন তাহলে বড় নখ রাখুন। নয়ত নখ কেটে কিছুটা ছোট করে ফেলুন। খেয়াল রাখবেন, নখ বড় রেখে  কোনো কাজ করতে গিয়ে যেন নখ না ভাঙে। অনেক সময় মাঝ থেকে নখ ভেঙে যায় ও রক্ত পড়ে।

Photo: Fashionista

আপনি কাজের সুবিধা ও আপনার চলাফেরার সুবিধা অনুযায়ী নখ বড় কিংবা ছোট রাখুন। তাহলে কোনো কাজ করতে গিয়ে ইতস্তত বোধ করতে হবে না।

কিউটিকল সুরক্ষিত রাখা

অনেক মেয়েরা নখের কিউটিকল তথা গোড়ার চামড়ার ব্যাপারে যত্নশীল থাকে না। নখের কিউটিকল ব্যাকটেরিয়া প্রতিরোধ করে এবং যেকোনো সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা করে। তাই কিউটিকল কাটা, ছেঁড়া বা টানা ঠিক নয়। তাছাড়া চিকিৎসকরা মনে করেন, সপ্তাহে একবার গোসলের পরে এর যত্ন নেয়া, কিউটিকল আর্দ্র রাখা এবং এতে লোশন মাখা প্রয়োজন।

নখ ঘষা

নখের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধির জন্য সপ্তাহে একবার নখ ঘষতে পারেন। এতে নখ সুন্দর থাকবে। নিয়মিত নখের এক্সফোলিয়েট করলে নখ ভালো থাকবে। তবে খেয়াল রাখবেন, যেন অতিরিক্ত কিছু না করা হয়।

Photo: AliExpress.com

অতিরিক্ত এক্সফোলিয়েট নখের স্তর অনেক পাতলা করে দেয়। সপ্তাহে একবার নখে বাফার ব্যবহার করতে পারেন।

নখের সরঞ্জামাদি পরিষ্কার রাখুন

নখের যত্ন নেওয়ার সাথে সাথে এর সাথে জড়িত সরঞ্জামাদির যত্ন নিন। এসকল সরঞ্জামাদি কুসুম গরম পানিতে সাবান বা শ্যাম্পুর মিশেলে পরিষ্কার করতে পারেন। মেনিকিউর মেডিকিউর করার ব্রাশ ও অন্যান্য সরঞ্জাম সাবান পানিতে ধুয়ে পরিষ্কার করলে সহজে নষ্ট হবে না। সেই সাথে ব্যাকটেরিয়া সংক্রমিত করতে পারবে না। তবে দীর্ঘদিন একই দ্রব্য বা সরঞ্জাম ব্যবহার করবেন না। কিছুদিন পর পর পরিবর্তন করুন।

আর্দ্র রাখা

নখ সুন্দর, শক্ত ও মজবুত রাখতে হলে আর্দ্র রাখা জরুরী। শরীরের অন্যান্য অঙ্গের তুলনায় হাত ধোয়া হয় বেশি। অথচ অনেকেই হাত ধোয়ার পর লোশন লাগায় না কিংবা লোশন লাগাতে ভুলে যায়।

Photo: kingworldnews.com

হাত ধোয়ার পর লোশন লাগালে হাতের ত্বক, নখের ত্বক ভালো থাকে। তাই প্রতিনিয়ত নখ আর্দ্র রাখুন।

নিয়মিত মেনিকিউর করা

মুখের সৌন্দর্য রক্ষার জন্য আপনি নিশ্চয় প্রতিদিন সময় বের করেন। তাহলে নখের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য আপনাকে রোজ মেনিকিউর করার সময় বের করতে হবে।

Photo: marocdeal.com

রোজ না পারলে সপ্তাহে অন্তত দুইবার মেনিকিউর করুন। এতে নখ সুন্দর ও সুস্থ থাকবে। সেই সাথে নখের আর্দ্রতা বজায় থাকবে।

বেজ কোটের ব্যবহার

নখে বিভিন্ন রঙের নেইলপলিশ ব্যবহার করতে চাইলে প্রথমে বেজ কোট ব্যবহার করুন। বিভিন্ন রঙের নেইলপলিশ বা নেইল পেইন্ট ব্যবহার করলে নখের ক্ষতি হয়ে থাকে। বেজ কোট ব্যবহার করলে নখের ক্ষতি হয় না। এমনকি ভেঙে যাওয়া ও অন্যান্য ক্ষতির হাত থেকে নখকে রক্ষা করে।

বিরতি দেয়া

আপনি যদি নেইলপলিশ ব্যবহার করতে ভালোবাসেন, তাহলে তা ব্যবহার করুন। তবে কিছুদিন পর পর নখে নেইলপলিশ লাগাবেন। একনাগাড়ে অনেক দিন নেইলপলিশ ব্যবহার করা ঠিক নয়।

Photo: YouTube

এক সপ্তাহ নখে নেইলপলিশ ব্যবহার করলে পরের এক সপ্তাহ তা ব্যবহার করবেন না। তাছাড়া ব্র্যান্ডের নেইলপলিশ কিনুন। সস্তা ও কম দামী পণ্য আপনার নখের ক্ষতি করতে পারে।

নখের সুরক্ষা

বাগান করা, কোনো রাসায়নিক পণ্য ব্যবহার করা কিংবা কেমিক্যাল ধরার আগে অবশ্যই মোজা কিংবা অন্য কোনো গ্লাভস পরে নিন। এতে আপনার নখ ভালো থাকবে। নয়তো নখের ক্ষতি হতে পারে।

সুষম খাদ্য

নখের স্বাস্থ্য রক্ষা, সৌন্দর্য বৃদ্ধি, মজবুত ও শক্ত করার জন্য নিয়মিত সুষম খাদ্য খেতে হবে। প্রোটিন, জিংক, বায়োটিন ও আয়রন সমৃদ্ধ খাবার খেতে হবে। নখ সুস্থ রাখার জন্য বায়োটিনের ভূমিকা সবচেয়ে বেশি।

ফিচার ইমেজ সোর্সঃ Fashionista

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.