সেলফি তোলার জন্য সেরা যত এন্ড্রয়েড ফোন

প্রযুক্তির এ যুগে এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া ভার যার হাতে কোন স্মার্টফোন নেই। অত্যন্ত সহজলভ্য হওয়ায় এন্ড্রয়েড স্মার্টফোন যেন আমাদের দৈনন্দিন জীবনেরই একটি অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

নিজের বাজেট এবং পছন্দের ভেতর সেরা স্মার্টফোনটি খুজে পেতে কে না চায় বলুন। ফটোগ্রাফি এবং সেলফির এ যুগে একটি ভালো ক্যামেরা থাকা যেন সকল ফোনেরই একটি অপরিহার্য অংশ। সেলফিপ্রেমিদের জন্য তাই আজ আমরা নিয়ে এসেছি সাম্প্রতিক সে সকল এন্ড্রয়েড স্মার্টফোনের তালিকা, যাদের অসাধারণ ক্যামেরা এবং পারফরম্যান্সের কারণে করতে পারবেন মোবাইল ফটোগ্রাফি এবং তুলতে পারবেন সেরা সব সেলফি ।

হুয়াওয়ে পি ২০ এবং পি ২০ প্রো

হুয়াওয়ের এখন পর্যন্ত সেরা ডিজাইনসম্পন্ন এন্ড্রয়েড ফোন এটি। হুয়াওয়ে পি২০ সেটটি ৫.৮ ইঞ্চি এলসিডি ডিসপ্লেসম্পন্ন যেখানে পি ২০ প্রো ৬.১ ইঞ্চি এবং এর সাথে ওএলইডি প্যানেল রয়েছে। পি২০ এর ক্যামেরা  লেইকা ডুয়েল ক্যামেরা সেটআপের পাশাপাশি এটি ১২ মেগাপিক্সেল আরজিবি সেন্সর এবং মনোক্রম  সেন্সরের সংমিশ্রণে তৈরি।

অপরদিকে পি২০ প্রো বিশ্বের প্রথম ট্রিপল রেয়ার ক্যামেরা সেটআপের অধিকারী স্মার্টফোন। এতে ২০ মেগাপিক্সেলের আরজিবি সেন্সর ছাড়া ৪০  মেগাপিক্সেলের মনোক্রম সেন্সরও রয়েছে। এর পাশাপাশি এতে তৃতীয় একটি সেন্সর, ৮ মেগাপিক্সেলের টেলিফটো লেন্স রয়েছে । পি২০ প্রোর আরেকটি  বৈশিষ্ট্য হল,এর ক্যামেরা ৫ গুণ পর্যন্ত জুম করা যায়।

হুয়াওয়ে পি ২০ এবং পি ২০ প্রো; Source : digitaltrends.com

উভয় ফোনে ৮ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা রয়েছে। হুয়াওয়ের কিরিন ৯৭০ প্রসেসরের এনপিইউ চিপ আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ফিচারসম্পন্ন যা কিনা ক্যামেরার মান উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখেছে। আর এসব কারণে এ স্মার্টফোনটি ছবি তোলার একটি অসাধারণ যন্ত্রে পরিণত হয়েছে।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এস ৯ এবং এস ৯ প্লাস

স্যামসাং কোম্পানির গ্যালাক্সি সিরিজের স্মার্টফোনগুলোর জনপ্রিয়তা আকাশচুম্বী। দীর্ঘ ব্যাটারি লাইফ, হাই রেজ্যুলুশন স্ক্রিন, অসাধারণ ক্যামেরা পারফরমেন্স এরকম বেশকিছু গুণাবলি স্যামসাংকে এক অন্য উচ্চতায় নিয়ে গিয়েছে। তবে ফ্ল্যাগশিপ ফোনগুলোর মধ্যে এস ৮ এবং তার পরবর্তী ফোনগুলোর ডিজাইনে আনা হয়েছে বেশ কিছু পরিবর্তন।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এস ৯ এবং এস ৯ প্লাস; Source : hardwarezone.co

তবে গ্যালাক্সি এস ৯ এবং এস ৯ প্লাস তাদের পূর্বসূরিদের থেকে অনেকটা আলাদা। এদের ক্যামেরায় রয়েছে বেশ কিছু পরিবর্তন। উভয়েরই ডুয়েল ক্যামেরা ফিচারসহ একটি প্রাইমারি ১২ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা রয়েছে যা কিনা এফ/১.৫ থেকে এফ/২.৪ এর মধ্যে ছবি তুলতে পারে। এস ৯ প্লাসে এর পাশাপাশি সেকেন্ডারি ১২  মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরাও থাকে। উভয় ফোনেরই ৮ মেগাপিক্সেলের একটি ফ্রন্ট ক্যামেরা রয়েছে। এস ৯ এবং এস ৯ প্লাস উভয়েই ৯৬০ ফ্রেম পার সেকেন্ডে ৭২০ পিক্সেলের স্লো মোশন ভিডিও ধারণ করতে সক্ষম।

গুগল পিক্সেল ২ এবং ২ এক্সেল

ছবি তোলার জন্য সেরা স্মার্টফোনের তালিকায় গুগল পিক্সেল ২ এবং ২ এক্সেল অন্যতম নাম। এদের ফ্রন্ট ক্যামেরা ১২ মেগাপিক্সেল সেন্সরযুক্ত এবং এফ ২.৪ আ্যাপার্চারের সাথে ১.৪ মাইক্রোমিটার পিক্সেল সাইজ সম্পন্ন।

গুগল পিক্সেল ২ এবং ২ এক্সেল; Source : forbes.com

এছাড়া এদের রয়েছে ১২.২ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি ক্যামেরা যা আপনাকে অসাধারণ সব ছবি উপহার দেবে । স্ন্যাপড্রাগন ৮৩৫ চিপসেট এবং ৪ গিগাবাইট র‍্যামসম্পন্ন এ স্মার্টফোনগুলোকে এন্ড্রয়েডের লেটেস্ট ভার্সনে আপগ্রেড করা রয়েছে।

ওয়ান প্লাস ফাইভ টি

ওয়াল প্লাস ফাইভ স্মার্টফোন হিসেবে বেশ ভালো হলেও তা ২০১৭ তে ব্যবসাসফল হবার মত গুণগত মানসম্পন্ন ছিল না। এর ফলশ্রুতিতে বেশ কিছু ত্রুটি সারানোর পর বাজারে মুক্তি পায় ওয়ান প্লাস ফাইভ টি

ওয়ান প্লাস ফাইভ টি; Source : zdnet.com

ওয়ান প্লাস ফাইভ টির বেশিরভাগ ফিচার ওয়ান প্লাস ফাইভের মত হলেও নিমার্তারা নতুন ফোনটির ক্যামেরার উপর বেশ জোর দিয়েছেন। ওয়ান প্লাস ফাইভের টেলিফটো লেন্সের পরিবর্তে ফাইভ টিতে একটি ২০ মেগাপিক্সেল সেন্সর রয়েছে যাতে সর্বাধুনিক পিক্সেল প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে। এর ফলে কম আলোতে অপেক্ষাকৃত ভালো ছবি তোলা যায়।

এইচ.টি.সি ইউ ১১

সেলফি তোলার জন্য সেরা স্মার্টফোনের একটি এইচ.টি.সি ইউ ১১। ওয়ান প্লাস ফাইভের মত ইউ ১১ সেটটিতেও ১৬ মেগাপিক্সেল সেকেন্ডারি ক্যামেরা রয়েছে। এর এফ/২.০ অ্যাপারচার  রয়েছে যার ডাবল এইচ ডি আর বুস্ট  ফিচার রয়েছে। এর ফলে ক্যামেরা ভিন্ন ভিন্ন এক্সপোজার লেভেলে আলাদা ছবি তুলে সবগুলোকে একত্রিত করে একটি বড় ছবিতে পরিণত করতে পারে।

এইচ.টি.সি ইউ ১১ ; Source : digit.in

ইউ ১১-র লাইভ মেকআপ মোড নামক একটি ফিচার রয়েছে যা ছবি তোলার আগে  অনেকটা ফিল্টার হিসেবে কাজ করে। এ ফ্ল্যাগশিপ ফোনটি সেলফি তোলার জন্য আরো বেশ কিছু ফিচার যোগ করেছে যার মধ্যে রয়েছে টাইমার সেট করা, স্মাইল ডিটেকশন অথবা অটো ডিটেকশন।

এলজি ভি৩০

এলজির লেটেস্ট ফোন ভি৩০ স্যামসাং কোম্পানির গ্যালাক্সি নোট ৮-এর সাথে পাল্লা দেওয়ার ক্ষমতা রাখে। এর একটি উন্নতমানের সেকেন্ডারি ক্যামেরা রয়েছে। যদিও মাত্র ৫ মেগাপিক্সেল হওয়ায় তা অনেকের কাছে ভালো মনে নাও হতে পারে। কিন্তু ওয়াইড এঙ্গেল এবং স্ট্যান্ডার্ড মোডসম্পন্ন এবং এফ/২.২ আ্যাপার্চার বিশিষ্ট হওয়ায় এ স্মার্টফোনটি দিয়ে অসাধারণ সব সেলফি তোলা যায়।

এল.জি ভি৩০ ; Source : androidauthority.com

এ লিস্টের অধিকাংশ স্মার্টফোনের মত এটির পেছনেও ডুয়েল ক্যামেরা রয়েছে। ১৬ মেগাপিক্সেল এবং এফ/১.৬ আ্যাপার্চার বিশিষ্ট মূল সেন্সরটি স্ট্যান্ডার্ড এবং ওয়াইড এঙ্গেলে যেতে পারে যার সাথে লেজার ও ফেস এঙ্গেল অটোফোকাসও রয়েছে। সেকেন্ডারি ওয়াইড সেন্সরটি ১৩ মেগাপিক্সেলের এবং এফ/১.৯ আ্যাপার্চার বিশিষ্ট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.